সৌদি আরবের তেলবাহী দুটি জাহাজে হামলা

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফুজাইরাহ উপকূলে সৌদি আরবের দুটি তেলবাহী জাহাজের নাশকতামূলক হামলার শিকার হয়েছে। রোববারের এই হামলায় কোনো ধরনের হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও তেল ট্যাংকার বহন করা জাহাজ দুটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই এই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহর দেয়া এক বিবৃতির বরাত দিয়ে সোমবার এই খবর জানিয়েছে বিবিসি।

অন্যদিকে আরব আমিরাত হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছে, তাদের উপকূলে বিভিন্ন দেশের চারটি জাহাজে নাশকতামূলক হামলা করা হয়েছে। তবে এই চারটি জাহাজের মধ্যে সৌদি আরবের জাহাজও আছে কিনা সেটি স্পষ্ট করে জানায়নি আরব আমিরাত। তারা জানিয়েছে, এই ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

ইরানের থেকে সম্ভাব্য হামলার আশঙ্কায় গত কয়েক দিনে আরব আমিরাতে এই উপকূলে যুক্তরাষ্ট্র অতিরিক্ত রণতরী নিয়োজিত করেছে। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের এমন হামলার অভিযোগ ইরান খামখেয়ালি বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

এদিকে সৌদি আরবরে তেলবাহী জাহাজে হামলার পর ইরান এই ঘটনায় বিবৃতি দিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে, এই হামলাকে উদ্বেগজনক এবং ভয়ানক উল্লেখ করে পূর্ণ তদন্তের দাবি জানিয়েছে।

সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহর তার বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সৌদি আরব থেকে জ্বালানি তেল নিয়ে আরব সাগর অতিক্রম করার সময় জাহাজ দুটি এই হামলার শিকার হয়। সৌদি আরমকো’র কাস্টমারের তেল নিয়ে ওই ট্যাংকারের যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল।

এই হামলার ঘটনার পর সমুদ্র অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং তেলবাহী জাহাজের নিরাপত্তা দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সৌদি আরব।

অন্যদিকে এই ঘটনার পর যুক্তরাষ্ট্র এই এলাকা অতিক্রম করার সময় সব ধরনের জাহাজকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *